Uncategorized

৮ কোটি টাকা ব্যায়ে তৈরি হলো আমতলায় বাস টার্মিনাল

৩ বিঘা জমির উপর ৮ কোটি টাকা ব্যায়ে তৈরী হলো আমতলা বাস টার্মিনাল। বাস টার্মিনাল ভারচুয়াল উদ্বোধন করেন ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

ধর্মতলা থেকে বকখালি, সাগর,পাথরপ্রতিমা, রায়দীঘি সহ সুন্দরবন এলাকার যোগাযোগের রাস্তা হলো ১১৭ নং জাতীয় সড়ক এছাড়া ধর্মতলা থেকে বাসে করে রায়চক ও নূরপুর বাসে করে এসে হুগলি নদী পার হয়ে সহজে মেদিনীপুর পৌঁছে যাওয়ার জন্য প্রতিদিন মেদিনীপুর জেলা থেকে বহু মানুষ যাতায়াত করে । ধর্মতলা থেকে বকখালি পর্যটন কেন্দ্র কিংবা পূর্ণ ভূমি গঙ্গাসাগরে বাস যোগে ধর্মতলা থেকে যেতে হলে ১১৭ নং জাতীয় সড়কের উপর দিয়ে যেতে। বাসে যেতে আমতলায় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয় সমস্যায় পড়তে হয় বকখালি পর্যটন কেন্দ্রে আসা পর্যটক থেকে শুরু করে গঙ্গাসাগর কপিল মুনি মন্দিরে পূজো দিতে আসা পূর্ণার্থীরা, সেই সঙ্গে সমস্যায় পড়তে হয় নিত্যযাত্রীদের। আমতলায় স্থায়ী কোন বাস টার্মিনাল না থাকার জন্য আমতলা কলকাতা যাওয়ার বাস গুলো দাঁড়িয়ে থাকে রাস্তার উপর ফলে ব্যাপক যানজট সৃষ্টি হয়। দীর্ঘদিন ধরে আমতলা এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা থেকে নিত্যযাত্রীরা আমতলা এলাকায় যানজট মুক্ত করতে আমতলায় স্থায়ী বাস টার্মিনাল করার দাবি জানিয়ে আসছিলো। ডায়মন্ড হারবার সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রে সাংসদ হওয়ার পর থেকে সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে আমতলায় স্থায়ী বাস টার্মিনাল করার জন্য চিন্তাভাবনা শুরু করে। যানজট মুক্ত করতে আমতলায় ৩ বিঘা জমির উপর ৮ টাকা ব্যায়ে উন্নত মানের বাস টার্মিনাল গোড়ে তোলা হয়, জানা যায় বাস টার্মিনাল তৈরী করতে সময় লাগে ২ বছর ১১ মাস ৭ দিন। এই বাস টার্মিনালে একসঙ্গে ১১ টি বাস দাঁড়াতে পারবে। ফলে যে সকল বাস আমতলা থেকে ছেড়ে বিভিন্ন জায়গায় যায় সেই সকল বাস ওই বাস টার্মিনাল থেকে ছাড়বে। আজ বাস টার্মিনাল ভারচুয়ালে উদ্বোধন করেন তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সম্পাদক ও ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রে সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন ভারচুয়াল বাস টার্মিনাল উদ্বোধনে আমতলায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী স্নেহাশিস চক্রবর্তী, রাজ্যের পরিবহন প্রতিমন্ত্রী দিলীপ মন্ডল, জেলাশাসক সুমিত গুপ্তা, জেলা সভাধিপতি সামিমা সেখ,
রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী স্নেহাশিস চক্রবর্তী জানান, এই বাস টার্মিনাল তৈরী হওয়ার ফলে আমতলায় অনেকটা যানজট মুক্ত হবে বলে আসা করেন, যানজট মুক্ত হলে কম সময়ের মধ্যে যেমন নিত্যযাত্রী সহজে নিজেদের গন্তব্য স্থলে যেমন কম সময়ের মধ্যে পৌঁছে যেতে পারবে তেমনি জেলার বিভিন্ন প্রান্ত সহ বিভিন্ন রাজ্য থেকে আসা বকখালি পর্যটন কেন্দ্রে ও গঙ্গাসাগরে কপিল মুনি মন্দিরে পূজো দিতে আসা পূর্ণার্থীরা সহজে পৌঁছে যাবে। সাধারণ মানুষের জন্য এবং ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রের বাসিন্দাদের আমতলা বাস টার্মিনাল উপহার দেন ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রে সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *