স্বাস্থ্য খেলার খবর

১০০% টিকাকরণ করে নজির গড়ল ডায়মন্ড হারবার পৌরসভা

ডেস্ক:- পুরসভা নির্বাচন কবে হবে, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে জল্পনা চলছে। মনে করা হচ্ছে, পুরো এলাকায় টিকা করার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু হবে। দেখা যাচ্ছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা একমাত্র ডায়মন্ডহারবার পুরসভা আঠারো ঊর্ধ্ব প্রায় সকলেই ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ পেয়ে গিয়েছেন।এমনকি, গ্রামীণ এলাকার বহু মানুষ ও পুরসভার বিভিন্ন স্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলিতে এসে টিকা নিয়ে গিয়েছেন। কলকাতাসহ রাজ্যে হাতেগোনা এমন কয়েকটি পৌরসভা রয়েছে যেখানে আঠারো ঊর্ধ্বদের সকলেই ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়ে গিয়েছে। ভ্যাকসিন সংকটের মধ্যে এই সাফল্য নজিরবিহীন বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। জেলা সূত্রে জানা গিয়েছ, ১৬ ওয়ার্ডের এই পুরসভায় প্রথম থেকেই ভ্যাকসিনের হার ভালই ছিল। ২ আগস্ট ৬০০ জনকে ভ্যাকসিন দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছিল জেলা প্রশাসন অথচ সেই দিনই ৯৭৭ জনকে টিকা দেওয়া সম্ভব হয়েছে। ডায়মন্ডহারবার পৌরসভা এলাকায় করোনা সংক্রমণ দ্রুত নিয়ন্ত্রণে এসেছে। এই মুহূর্তে এখানে ছ’জন সক্রিয় আক্রান্ত রোগী রয়েছেন। সূত্রের খবর এই পুরসভা এলাকায় টিকার দুটি ডোজ নেওয়া হয়ে গিয়েছে প্রায় ৭৫শতাংশ বাসিন্দার। জেলার মধ্যে সবথেকে ভালো জায়গায় রয়েছে এই পুরসভা। পরিসংখ্যান বলছে, এই পুরসভার মাধ্যমে সাড়ে ৪৬ হাজার মানুষ প্রথম ডোজ ৩১হাজার এরও বেশি মানুষ দ্বিতীয় ডোজর টিকা পেয়েছেন।টিকা দানের ক্ষেত্রে ১০০শতাংশ এর দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে বারুইপুর পুরসভা। এখানে দুই টি ডোজ নিয়েছেন ৩৪শতাংশ মানুষ। তবে এখনো অনেকটাই পিছিয়ে জেলার দুই টি বড় পুরসভা।রাজপুর -সোনারপুর ও মহেশতলা পুরসভায় চার লক্ষেরও বেশি মানুষের বাস। দুঃখজনক হলেও সত্যি যে এই দুটি পুরো এলাকায় যথাক্রমে ৬ এবং ৫ শতাংশ মানুষের ভ্যাকসিন দুটি ডোজ পেয়েছেন। যদিও এই দুটি পুরসভার জন্য প্রতিদিন ৫ হাজার করে ভ্যাকসিন বরাদ্দ করা হয়েছে গত কয়েকদিনে বজবজ এবং মহেশতলা ১৮ঊর্ধ্বদের প্রথম ডোজর টিকা দানের প্রক্রিয়া প্রক্রিয়া গতি পেয়েছে। পুরসভা গুলি ব্লকের তুলনায় বেশি ভ্যাকসিন পেলেও টিকাদানের হারআশানুরূপ নয় বলে মনে করা হচ্ছে। সূত্রের খবর, সার্বিকভাবে সাতটি পুরসভায় প্রথম ডোজ দেওয়ার হার প্রায় ৩২ শতাংশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *