রাজ্যের খবর জেলার খবর

হোটেলে নিয়ে গিয়ে কিশোরী কে গণধর্ষনের অভিযোগ, গ্রেপ্তার এক অভিযুক্ত

ঠাকুর দেখতে বেরিয়ে হোটেলে নিয়ে গিয়ে মাদক জাতীয় কিছু খাইয়ে এক কিশোরীকে দুই বন্ধু মিলে ধর্ষণের ঘটনায় এক অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে বর্ধমান মহিলা থানার পুলিস। ধৃতের নাম মহম্মদ ইমতিয়াজউদ্দিন শেখ। তার বাড়ি বর্ধমান থানার খাগড়াগড়ের পশ্চিমপাড়ায়। গতকাল অর্থাৎ রবিবার ভোরে বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ঘটনার বিষয়ে কিশোরী নিজেই মহিলা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়ে গণধর্ষণ, মাদক খাওয়ানো, ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো ও পকসো অ্যাক্টের ৬ ধারায় মামলা রুজু করেছে মহিলা থানার পুলিশ।

বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে কিশোরীর মেডিক্যাল পরীক্ষা করিয়েছে পুলিস। রবিবার ধৃতকে বর্ধমান আদালতে পেশ করা হয়। তদন্তের প্রয়োজনে ধৃতকে ৪ দিন নিজেদের হেফাজতে নিতে চেয়ে আদালতে আবেদন জানায় পুলিস। সেই আবেদন মঞ্জুর করেছেন ভারপ্রাপ্ত সিজেএম। ধৃতের মেডিক্যাল পরীক্ষা করানোর জন্য আদালতে আবেদন জানান তদন্তকারী অফিসার। তা মঞ্জুর করে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের ফরেন্সিক স্টেট মেডিসিনের বিভাগীয় প্রধানকে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দশ দিয়েছেন বিচারক।

পুলিস জানিয়েছে, বর্ধমান শহরের টিকরহাট এলাকায় বছর সতেরোর ওই কিশোরীর বাড়ি। গত ৫ অক্টোবর সন্ধ্যায় সে দুই বন্ধুর সঙ্গে শক্তিগড় থানার বড়শুলে ঠাকুর দেখতে যায়। পরেরদিন সকালে তাদেরকে মাদক জাতীয় কিছু খাওয়ানো হয়। এরপর তাকে গলসি থানা এলাকায় জাতীয় সড়কের পাশে একটি হোটেলে নিয়ে যায় তার দুই বন্ধু। সেখানে নিয়ে গিয়ে দু’জনে মিলে তাকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। কিশোরী বাধা দিতে গেলে তার গলায় ছুরি বসিয়ে দেয় তারা। এরপর কিশোরীর মোবাইলটি অভিযুক্তরা হোটেলের মেঝেতে ফেলে ভেঙে দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *