জেলার খবর

হিন্দু বন্ধুর শেষকৃত্য করলেন মুসলিম যুবকই।

বন্ধু তিলক রায়ের শেষকৃত্য সম্পূর্ণ করে ডায়মন্ড হারবারে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বার্তা দিলেন ডায়মন্ড হারবার পৌরসভার ১৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা রেজাউল করিম। রবিবার রাতে ডায়মন্ড হারবার পৌরসভার ১৪ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা তিলক রায়ের শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করার পর বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে রেজাউল করিম যান ডায়মন্ড হারবার কালিনগর মহাশ্মশানে।

ডায়মন্ড হারবার ১৪ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা তিলক রায়ের সঙ্গে দীর্ঘদিন দিনের বন্ধু ছিলো ডায়মন্ড হারবার ১৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা রেজাউল করিমের। তিলকের বাবা তিলকের বাবা বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্মী ছিলেন এবং মা স্থানীয় এক স্কুলের শিক্ষকতা করতেন। রেজাউলের বন্ধু তিলক ছিলো অবিবাহিত, তাঁর বাবা মা মারা যাওয়ার পর সংসারে তিলক একা হয়ে পড়ে। কয়েকদিন আগে তিলক অসুস্থ হয়ে যায় তখন তার পাশে দাঁড়ায় বন্ধু রেজাউল করিম। তাঁকে ডায়মন্ড হারবার জেলা হাসপাতালে ভর্তি করে রেজাউল। রবিবার রাতে ডায়মন্ড হারবার জেলা হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করে তিলক রায়। তাঁর পরিবারের কেউ না থাকায় বন্ধুর শেষ যাত্রায় সামিল হন রেজাউল।তাঁকে নিয়ে যায় ডায়মন্ড হারবার কালিনগর মহাশ্মশানে সেখানে হিন্দু শাস্ত্র মতে তিলকের শেষকৃত্য সম্পূর্ণ করে রেজাউল করিম। শেষকৃত্য সম্পূর্ণ করার পর রেজাউল করিম জানান, তিলক আমার দীর্ঘদিনের বন্ধু পরিবারের কেউ নেই তাই বন্ধু হিসাবে শেষ পর্যন্ত বন্ধুর পাশে দাঁড়াতে এসেছি কিন্তু শেষ পর্যন্ত বন্ধু তিলককে বাঁচাতে পারলাম না তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করি। পাড়ার লোকজনের সঙ্গে আলোচনা করে তবে শেষকৃত্য সম্পূর্ণ করেছি।
রেজাউল করিমের সামপ্রদায়িক সম্প্রীতি উদাহরণ হয়ে থাকলো ডায়মন্ড হারবার। ডায়মন্ড হারবার পৌরসভার বাসিন্দা রেজাউলের এই কর্মকান্ডকে সাধুবাদ জানাচ্ছে পৌরবাসিরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *