দেশের খবর ফ্যাশন

স্কুল শিক্ষিকার সঙ্গে একদল ছাত্রের যৌনতার ভিডিয়ো! নজরে আসতেই তদন্তে পুলিশ।

তামিলনাড়ুতে চাঞ্চল্যকর ঘটনা। স্কুল পড়ুয়াদের সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত স্কুল শিক্ষিকা! নাবালক ছাত্রদের সঙ্গে শিক্ষিকার অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিয়ো ছড়িয়ে পড়তেই উত্তাল তামিলনাড়ু। ভিডিয়োটি নজরে আসতেই তদন্তে নেমেছে সাইবার সেল (Cyber Cell)।

মাদুরাইয়ের জনপ্রিয় সরকারি স্কুলের শিক্ষিকার সঙ্গে নাবালক ছাত্রদের যৌনাচারের Video ভাইরাল হতেই শিউরে উঠছেন অভিভাবকেরা। প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে, ৪২ বছরের শিক্ষিকার সঙ্গে নাবালক ছাত্রদের একত্রে যৌন সঙ্গমের ভিডিয়োটি রেকর্ড করেছেন এক ব্যবসায়ী। যিনি সম্পর্কে ওই মহিলার প্রেমিক বলে দাবি। তদন্তে নেমে ওই শিক্ষিকা ও তাঁর ৩৯ বছরের প্রেমিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আপাতত পুলিশি হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে তাদের।

জানা গিয়েছে, ভিডিয়োটি ওই ব্যবসায়ী তাঁর কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে টাকার বিনিময়ে শেয়ার করেন। সেখান থেকেই ছড়িয়ে পড়ে ভিডিয়োটি। সাইবার সেল পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। প্রাথমিক ভাবে ভিডিয়োটি ইন্টারনেট থেকে সরিয়ে দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। তবে সাইবার সেলের এক উচ্চ পদস্থ আধিকারিক জানিয়েছেন, তদন্তকারীদের আশঙ্কা ভিডিয়োটি পয়সার বিনিময়ে কোনও ইন্টারন্যাশনাল অ্যাডাল্ট ছবির সাইটে আপলোড করা হয়ে থাকতে পারে। সেই বিষয়টিই খোঁজ করে দেখছে পুলিশ। একইসঙ্গে যত জন মানুষ ওই ভিডিয়োটি শেয়ার করেছেন তাদের উদ্দেশেও খোঁজ চলছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, ২০১০ সালে বিবাহবিচ্ছেদ হয় ওই শিক্ষিকার। তারপর থেকেই ওই ব্যবসায়ীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ সম্পর্ক মহিলার। জেরায় প্রকাশ, ঘটনার দিন ১৬ বছরের তিন ছাত্রকে বাড়িতে ডাকেন ওই শিক্ষিকা। তারপরই তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হতে শুরু করেন। শিক্ষিকার সঙ্গে একত্রে তিন ছাত্রের ঘনিষ্ঠতার ভিডিয়ো রেকর্ড করেন প্রেমিক ব্যবসায়ী।

জেরায় ওই ব্যবসায়ী স্বীকার করেছেন, তিনি কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে ভিডিয়োটি শেয়ার করেছিলেন। তারপরই ছড়িয়ে যায় ভিডিয়োটা। কারা ওই আপত্তিকর ভিডিয়ো শেয়ার করেছে তাদেরও খোঁজ করছে পুলিশ।

ঘটনায় ওই শিক্ষিকা ও তাঁর প্রেমিকের বিরুদ্ধে নাবালক ছাত্রদের সঙ্গে যৌনচারের অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। যৌন শোষণ, অশ্লীল ভিডিয়ো রেকর্ড ও প্রচারের সঙ্গে সঙ্গে ভয় দেখানোর অভিযোগও রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে Pocso Act-এর Section 5(1),5(n) r/w 6 , sections 292(A), 506 of IPC, এবং Sections 67 (A) এবং IT Act-এর 67 (B) ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *