রাজ্যের খবর

শোভনের পাশাপাশি হাসপাতালে ভর্তি হলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ও…!

শোভনের পাশাপাশি হাসপাতালে ভর্তি হলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ও…!

ডেস্ক, সুমিতা তপস্বী : নারদা মামলায় রাজ্য জুড়ে তুলকালাম কাণ্ড। হাইকোর্টের রায়ে জেলবন্দি রাজ্যের চার হেভিওয়েট রাজনীতিবিদ।তালিকায় মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, বিধায়ক মদন মিত্র ছাড়াও রয়েছেন প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ও। গ্রেপ্তারের রাতেই তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয় প্রেসিডেন্সি জেলে। যেখানে সকলের নজর পড়েছিল বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর। জেলের বাইরে কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন তিনি। শোভনের জন্য ওষুধ পৌঁছে দিতে চেয়েছিলেন তিনি। পরেরদিন ভোরে অসুস্থ বোধ করায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। আর তারপর থেকেই রটে যায়, SSKM হাসপাতালের উডবার্ন ব্লকে শোভনের পাশের কেবিনে ভর্তি করা হয়েছে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কেও।

গুজব রটে যায় SSKM হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার জন্য SSKM-এর চিকিৎসকদের কাছে কার্যত জেদ করছেন বৈশাখী। যে করেই হোক শোভন চট্টোপাধ্যায়ের পাশের কেবিনেই তাঁকে ভর্তি করার আর্জি জানান কর্তৃপক্ষের কাছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে একাধিক পোস্ট। গুজব রটে যায়,শেষ পর্যন্ত বৈশাখীর জেদের কাছে হার মানতে বাধ্য হয়েছেন চিকিৎসকরা। উডবার্ন ব্লকে শোভনের ঠিক পাশের কেবিনেই ভর্তি হয়েছেন বৈশাখী। মুহূর্তেই ভাইরাল হয় পোস্ট। শোভন-বৈশাখীর ছবি সহ একাধিক ব্যঙ্গাত্মক কমেন্টে ছেয়ে যায় ফেসবুক-টুইটার। নেটপাড়ায় রীতিমতো চর্চা শুরু হয় বৈশাখীকে নিয়ে। কেউ কেউ বলতে শুরু করেছিলেন চারিদিকে যখন বেডের আকাল তখন কীভাবে অসুস্থ না হয়েও SSKM-এ ভর্তি হয়ে গেলেন তিনি।

বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্ট জানিয়ে দেন, তিনি সুস্থ রয়েছেন এবং হাসপাতালে ভর্তি হননি। উলটে নেটমাধ্যমে রটে যাওয়া গুজবে রীতিমতো ক্ষুব্ধ হন তিনি। ফেসবুকে একটি লম্বা পোস্টে তিনি জানান, তাঁকে এখন সুস্থ থাকতেই হবে। কারণ তাঁর একমাত্র লক্ষ্য শোভনকে বাড়ি ফেরানো। তিনি আইনজীবীদের সঙ্গে একের পর এক বৈঠক করছেন। তাই অসুস্থ হওয়ার ফুরসত তাঁর নেই। পাশাপাশি নেটিজেনদের একহাত নিয়ে তিনি আরও জানান, তাঁর লড়াইটা সিস্টেমের বিরুদ্ধে। অন্য কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *