রাজ্যের খবর আন্তর্জাতিক দেশের খবর প্রযুক্তি

শিলিগুড়ি থেকে গ্যাংটক পৌঁছে যান আরও সহজে! পর্যটকদের জন্য বিরাট সুখবর

পশ্চিমবঙ্গ থেকে এবার আরও সহজে পৌঁছানো যাবে গ্যাংটকে। সিকিম এবং বাংলা সীমানায় ১০ নম্বর জাতীয় সড়কের উপর, রংপোতে তৈরি করা হয়েছে নতুন সেতু। প্রায় দেড় কিলোমিটার লম্বা এই সেতু Rangpo IBM Bridge নামে পরিচিত। এই সেতুর নামকরণ করা হয়েছে ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী প্রয়াত অটলবিহারী বাজপেয়ীর নামে। দু’পাশের সৌন্দর্য দেখতে দেখতে এগিয়ে যাওয়া যাবে এই সেতু দিয়ে। চলতি মাসের ৪ তারিখে গ্যাংটকে এসে অটল সেতু ( Atal Setu) উদ্বোধন করেন রাষ্ট্রপতি Droupadi Murmu। একই সঙ্গে উদ্বোধন করা হয় Chisopani Traffic Tunnel। এটিও করা হয়েছে ১০ নম্বর জাতীয় সড়ক (NH10)-এর উপর। এই টানেল করা হয়েছে Singtam এবং Ranipool-র মধ্যে।

এতদিন শিলিগুড়ি থেকে সিকিম যাওয়ার বা সেখান থেকে আসার জন্য ভরসা ছিল রংপো নদীর ওপর পুরনো সেতু। তিস্তাবাজার হয়ে কালিম্পংয়ের কাছে ওই সেতুতে যানজট লেগেই থাকত। সেইসঙ্গে ধস বা প্রাকৃতিক বিপর্যয় হলে সমস্যা আরও বাড়ত পর্যটক থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের। ঘুরপথে অনেকটা সময় নিয়ে যাতায়াত করতে হত। তাই ওই সমস্যা মেটানোর লক্ষ্য নিয়ে বিকল্প সেতুর কাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালে এই সেতুর কাজ শুরু হয়েছিল। ঠিক ছিল, ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যেই ওই সেতুর কাজ শেষ করা হবে। কিন্তু করোনার কারণে বন্ধ হয়ে যায় সেতুর কাজ। চলতি বছরেই এই সেতুর কাজ শেষ হয়েছে। এই সেতু করতে খরচ হয়েছে ১৩৩.৪৯ কোটি টাকা। আধিকারিকরা জানান, এই সেতু করতে ব্যবহার করা হয়েছে উন্নত প্রযুক্তি। ওই এলাকা ভূমিকম্প এবং ধসপ্রবণ। সেতুটি এমনভাবে করা হয়েছে যা রিখটার স্কেলে ৮ থেকে ৯ মাত্রার ভূমিকম্প সহ্য করতে পারবে। ওই সেতু করতে ব্যবহার করা হয়েছে Viaduct Engineering।

সেখানে ১৮টি modules এমনভাবে রাখা হয়েছে যা ভূমিকম্প সহনীয়। ওই সেতুটি ডবল লেনের এবং দুদিকেই রাখা হয়েছে ফুটপাথ। সিংটামের কাছে Chisopani ট্রাফিক টানেলটিতেও একই সময়ে দুদিক দিয়ে গাড়ি যাতায়াত করতে পারবে। প্রায় ২৫০ মিটার লম্বা এবং ১৭০ মিটার ‘অ্যাপ্রোচ রোড’ আছে তাতে। এই টানেল করতে খরচ হয়েছে ২৯ কোটি টাকা। এই দুটি প্রকল্পের উদ্বোধন করে রাষ্ট্রপতি জানান, সিকিমের সঙ্গে ভারতের অন্য এলাকার যোগাযোগ আরও উন্নত করা হচ্ছে। সেখানে তৈরি করা হচ্ছে রেললাইনও। এদিকে অটল সেতুর কারণে সরু সেতু আর কেউ ব্যবহার করবেন বলে মনে করছেন রংপোর ব্যবসায়ীরা। এর ফলে সমস্যার মধ্যে পড়তে চলছেন তাঁরা বলেও জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *