দেশের খবর আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক খবর

লোকসভা ভোটের আগেই মোদী সরকারের বড় পদক্ষেপ । রাতেই জারি হতে পারে CAA বিজ্ঞপ্তি । নবান্নে শুরু হল জরুরী বৈঠক ।

দেশজুড়ে কার্যকর হল CAA, ঘোষণা কেন্দ্রের। আজ রাত ১০ টায় কার্যকর হতে পারে CAA , এমনটা জানা গেলেও সপ্তাহ শুরুর সন্ধ্যায় জারি হল অর্ডিন্যান্স। উল্লেখ্য, গত কয়েক মাসে শাসক দলের একাধিক নেতা দাবি করেছিলেন, খুব শিগগির জারি হতে চলেছে দেশে। এদিন সেই দাবিতেই সিলমোহর দিল অমিত শাহর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। 

ভারতে আবেদন করার জন্য কী কী লাগবে ?

বিভিন্ন ফর্মের জন্য বিভিন্ন রকমের নথি প্রয়োজন হবে। নথিগুলি হল-

১. বৈধ বিদেশি পাসপোর্ট।

২. বাসস্থানের পারমিট।

৩. বাবা-মায়ের জন্ম শংসাপত্র অথবা তাঁদের ভারতীয় পাসপোর্ট।

৪. ৫০০ টাকার একটি ব্যাঙ্ক চালান, যা স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ায় জমা করতে হবে।

৫. আবেদনকারীর স্বামী বা স্ত্রীর ভারতীয় পাসপোর্ট বা বার্থ সার্টিফিকেট।

৬. বিয়ের শংসাপত্র বা ম্যারেজ সার্টিফিকেট।

৭. ভারতে বসবাসকারী বিদেশি নাগরিক হিসেবে রেজিস্ট্রেশনের সার্টিফিকেট থাকতে হবে। (ভিনদেশ থেকে এলে)

৮. ভারতে ব্যবহৃত যে কোনও একটি ভাষা সম্পর্কে কতটা জ্ঞান রয়েছে, তার প্রমাণ হিসেবে কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শংসাপত্র থাকতে হবে, অথবা আবেদনকারীর জেলায় বসবাসকারী দুজনকে মান্যতা দিতে হবে।

৯. আবেদনকারীর চরিত্র সম্পর্কে সার্টিফিকেট দিতে হবে দুজনকে।

১৯৫০-এর ২৬ জানুয়ারি থেকে ১৯৮৭-র ৭ জানুয়ারি পর্যন্ত যাঁদের জন্ম হয়েছে, তাঁরা জন্মসূত্রেই ভারতীয় নাগরিক। এ ক্ষেত্রে তাঁদের বাবা-মায়ের নাগরিকত্ব কী, তা দেখা হয় না। আবার ১৯৮৭ থেকে ২০০৪ সালের মধ্যে যাঁদের জন্ম, তাঁদের জন্মের সময় বাবা-মায়ের নাগরিকত্ব ভারতীয় হলে তবেই তাঁরা ভারতীয় হিসেবে চিহ্নিত হবেন। আর ২০০৪-এর পর যাঁরা জন্মেছেন, তাঁদের ক্ষেত্রে দেখা হবে, হয় বাবা-মাকে ভারতীয় নাগরিক হতে হবে অথবা যে কোনও একজন ভারতীয় ও অপরজন অবৈধ অনুপ্রবেশকারী নন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *