রাজ্যের খবর অর্থনীতি প্রযুক্তি

রাজ্যে এবার চালু হচ্ছে সাইবার ফরেন্সিক সেকশন।

রাজ্যে এবার চালু হচ্ছে সাইবার ফরেন্সিক সেকশন। বেলগাছিয়ায় ফরেন্সিক সায়েন্স ল‌্যাবরেটরিতে এই নয়া বিভাগ চালু করা হবে। দিন কয়েক আগে নবান্নে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। মোট নজনকে নতুন এই বিভাগে নিয়োগ করা হবে। তবে যেহেতু এটা নতুন বিভাগ, তাই নয়া রিক্রুটমেন্ট রুলের জন‌্য আইন বিভাগের বিবেচনাধীন রয়েছে। সেখান থেকে ছাড়পত্র পেলেই এই বিভাগে পিএসসি-র মাধ‌্যমে নিয়োগ করা হবে। সাইবার সংক্রান্ত অপরাধের প্রামাণ‌্য তথ্যের জন‌্য পুলিশকে সাহায‌্য করতে এই বিভাগ চালু হবে বলে জানা গিয়েছে।

মোবাইল, ল‌্যাপটপ, কম্পিউটারের হার্ড ডিস্ক থেকে মুছে দেওয়া ছবি, তথ‌্য ইত‌্যাদি উদ্ধার করতে সাহায‌্য করবে এই নতুন বিভাগ। তাছাড়া ‘গেইট’ ভিডিও অ‌্যানালিসিস করে অপরাধী শনাক্ত করতে এই বিভাগ সহায়তা করবে। এক পুলিশ আধিকারিকের কথায়, প্রত্যেক মানুষের চোখের মণি আলাদা। প্রত্যেকের হাতের ছাপ আলাদা। তেমনই প্রত্যেক মানুষের হাঁটার ধরনও আলাদা। তাই কোনও ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ থাকলে, ওই ঘটনায় ধৃত ব্যক্তিই অপরাধ ঘটিয়েছেন কি না, তা বলা যাবে হাঁটার ধরন মিলিয়ে। আর এক্ষেত্রে যে পদ্ধতি ব্যবহার করা হবে, তাকে বলা হয় ‘গেইট’ প্রযুক্তি। নয়া বিভাগ এই কাজটিই করবে ফরেন্সিক ল‌্যাবেরটরিতে।
দুষ্কৃতীর যখন মুখ ঢেকে কোনও অপরাধ করেন, সেই অপরাধীদের শনাক্ত করতে এই পদ্ধতি খুবই কার্যকর হয়। ইতিমধ্যেই কলকাতা পুলিশ এবং চন্দননগর পুলিশ কমিশনারেট কয়েকটি কেসের কিনারা করেছে। রানাঘাটে একটি সোনার দোকানে দুঃসাহসিক ডাকাতির ঘটনায় অপরাধী শনাক্তের কাজ এই পদ্ধতিতে করা হয়। কলকাতায় কাঁকুলিয়া রোডে ব্যবসায়ী সুবীর চাকী খুনের মামলায় এই পদ্ধতির ব্যবহার করা হয়েছিল। পুলিশের বক্তব্য, শুধু তদন্তের ক্ষেত্রে নয়, বিচারের সময় এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রমাণ হয়ে ওঠে।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হাঁটার সময় একজন মানুষ পায়ের পাতার উপর কতটা জোর দেন, কতটা ঝোঁকেন, কতটা দূরত্বে পা ফেলেন, তা সবার ক্ষেত্রে আলাদা। ‘গেইট’ প্রযুক্তি ব্যবহার করে ধৃত ব্যক্তির হাঁটাচলা দেখে বোঝা যাবে তিনি কতটা দূরে পা ফেলছেন। পায়ের পাতার উপর কতটা জোর দিচ্ছেন। এরপর সিসিটিভি ফুটেজে পাওয়া ছবি মিলিয়ে দেখা হয়। এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে সুফল পাওয়া যায় বলে পুলিশের বক্তব্য। প্রশাসনের এক কর্তার কথায়, সাইবার ফরেন্সিক পরীক্ষা সংক্রান্ত বেশিরভাগ কাজই নতুন এই বিভাগ করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *