বিনোদন

বুকের দুধ খাওয়ানোর দৃশ্য কীভাবে শুট হয়েছিল, মুখ খুললেন ‘রাম তেরি গঙ্গা মইলি’ মন্দাকিনী

মন্দাকিনী (Mandakini), নামটা বললেই দর্শকদের মনে পড়ে যায় ৮০ এর দশকের শেষের দিকে এক সুন্দরী অভিনেত্রীকে। রাজ কাপুরের কালজয়ী সিনেমা ‘রাম তেরি গঙ্গা মইলি’তে (Ram Teri Ganga Maili) ঝরনার সামনে দাঁড়িয়ে ভেজা শরীরে উপচে পড়েছিল তার যৌবন। ভেজা সাদা শাড়ির আড়ালে ফুটে উঠেছিল শরীরী ভাঁজ, শরীরের গোপনীয়তা উন্মুক্ত করে ক্যামেরার সামনে ধরা দিয়েছিলেন গঙ্গা ওরফে মন্দাকিনী।

বলিউডের এই ছবি বহু কারণেই ইউনিক হয়ে থেকে যাবে ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে। যৌনতার কারণে শরীরী প্রদর্শন তো যেন বিনোদনের দুনিয়ায় জলভাত, তবে নগ্নতাকে পবিত্রতার চাদরে মুড়ে কীভাবে পরিবেশন করতে হয় তা দেখিয়েছিলেন রাজ কাপুর। তাই তো শত বিতর্কের মাঝেও ‘গঙ্গা’ চরিত্রটি আজও পবিত্র দর্শকদের নজরে।

সম্প্রতি হিন্দুস্থান টাইমস বাংলার কাছে ওই দৃশ্য নিয়ে মুখ খুলেছিলেন অভিনেত্রী। তিনি বলেন, ‘‘সবার প্রথম তো ওটা স্তন্যপানের দৃশ্য হিসাবে শ্যুট করা হয়েছিল, তবে বাস্তবে তেমনটা ঘটেনি। ওইরকমভাবে সাজানো হয়েছিল শটটি, কীভাবে গোটা দৃশ্য শ্যুট হয়েছিল তা বোঝানো খুব ঝক্কির ব্যাপার। দৃশ্যে আমার যে অনেকখানি উন্মুক্ত বক্ষবিভাজিকা দেখানো হয়েছে সেটাও টেকনিক্যালি তৈরি করা।”

সেই সঙ্গে তিনি আরও বলেন, “তবে আজকের দিনে যে ধরণের শরীর প্রদর্শন ছবিতে থাকে, সেই তুলনায় তো এটা কিছুই নয়। আমাদের তো ওই দৃশ্য নিয়ে কথা বলাও উচিত নয়। ওটা খুব পবিত্র একটা দৃশ্য, আজকাল তো সবকিছুতেই যৌনতা থাকে।’’ উল্লেখ্য, গত বছর একটি সাক্ষাৎকারে পদ্মিনী কোলহাপুরী দাবি করেন ছবির শুটিংয়ের ৪৫ দিনের মাথায় রাজ কাপুর নাকি নায়িকা বদলে ফেলতে চেয়েছিলেন! এর পরিপ্রেক্ষিতেও মুখ খোলেন মন্দাকিনী।

অভিনেত্রীর কথায়, ‘‘আমি সত্যি জানি না পদ্মিনী কোলহাপুরীকে এই চরিত্র অফার করা হয়েছিল কিনা। তবে ওই চরিত্রটার প্রতি অনেকের নজর ছিল, কিন্তু রাজ কাপুর আমাকে বেছে নিয়েছিলেন কারণ ওঁনার একটা নতুন মুখ প্রয়োজন ছিল। ওঁনাকে আমি এটাও বলতে শুনেছি, ‘কেউ আগে থেকেই পরিচিত হলে তাঁকে আমি গঙ্গার মতো পবিত্র কীভাবে গড়ে তুলব? আমার তো মনে হয় না…. এমন কিছু ঘটেছিল’’।

প্রথম ছবির পর মাত্র হাতে গোনা কিছু ছবি করেই বলিউড থেকে বিদায় নেন মন্দাকিনী। দীর্ঘ ২৬ বছর পর তিনি আবার ফিরেছেন ঋষভ গিরির গাওয়া ‘মা ও মা’ মিউজিক ভিডিওর হাত ধরে। এই ছবিতে তার সঙ্গে রয়েছেন তার ছেলে রব্বিল ঠাকুরও। এত বছর বাদে আবারও ক্যামেরার সামনে কাজের মধ্যে ফিরতে পেরে দারুণ খুশি অভিনেত্রী। এই কাজের সঙ্গে অদ্ভুত এক ভাললাগা জড়িয়ে গিয়েছে তার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *