রাজনৈতিক খবর রাজ্যের খবর

বর্তমানে খবরের কেন্দ্রবিন্দুতে ইসলামিয়া হাসপাতাল – চিকিৎসা হবে শুধু মুসলিম ধর্মালম্বী..!

ডেস্ক, সুমিতা তপস্বী : রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী তথা কলকাতা পুরসভার প্রশাসনিক বোর্ডের চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম ফিতে কেটে ইসলামিয়া হাসপাতালে কোভিড কেয়ার ইউনিটের উদ্বোধন করেন।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় ও সরকারি সহযোগিতায় তৈরি এই হাসপাতালে করোনা চিকিৎসার পাশাপাশি স্বাস্থ্যসাথী কার্ড-এর মাধ্যমে সাধারণ মানুষ অন্যান্য চিকিৎসায় সমস্ত সুযোগ-সুবিধা পাবেন বলেও জানিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, কলকাতার ইসলামিয়া কোভিড হাসপাতালে শুধুমাত্র মুসলিম ধর্মালম্বীদের চিকিৎসা করা হবে। এই বক্তব্যেই শোরগোল পড়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। যে সময় সাধারণ মানুষ চিকিৎসার জন্য এক হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতালে হন্যে হয়ে ঘুরছে সেই সময় ধর্মের ভিত্তিতে হাসপাতালে রোগী ভর্তির খবরে নেটপাড়া উত্তাল হয়ে ওঠে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ফিরহাদ হাকিমের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগরে দেন নেটিজেনরা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকেও কাঠগড়ায় তোলা হয় সংখ্যালঘু তোষণের জন্য।

৩০ মে রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম সেন্ট্রাল কলকাতার বৌবাজারের ইসলামিয়া হাসাপাতালে নতুন কোভিড ইউনিটের উদ্বোধন করেন। নতুন এই হাসপাতাল ভবনে থাকছে আলাদা কোভিড ইউনিট। এই ইউনিটে মোট ১১০টি বেড রাখা হয়েছে। যার মধ্যে আইসিইউ-এর জন্য আলাদা করে রাখা হয়েছে ৫০টি বেড। অক্সিজেন সমস্যা মেটাতে পুরো হাসপাতালে পাইপ লাইনের মাধ্যমে অক্সিজেন সরবরাহ করা হবে‌। থাকছে বাইপ্যাপের ব্যবস্থাও। আপাতত ৫০টি বাইপ্যাপ মেশিন দিয়ে চালু করা হচ্ছে।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ভাইরাল পোস্টের দাবিটি ভিত্তিহীন এবং বিভ্রান্তিকর। ইসলামিয়া হাসপাতালে জাতি ধর্ম নির্বিশেষে সবার চিকিৎসা করা হবে। এই হাসপাতালের সমস্ত কর্মীও কোনো নির্দিষ্ট সম্প্রদায়ভুক্ত নন।

১৯২৬ সালে ইসলামিয়া হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করা হয়। পরিকাঠামোগত সমস্যার কারনে হাসপাতাল বন্ধ করে দেওয়া হয়। গত পাঁচ বছর ধরে সেই জায়গায় একটা নতুন ভবন তৈরি করা হচ্ছিল। কোভিড পরিস্থিতির জন্য হাসপাতালটিকে নতুন করে সাজানো হয়েছে। ঝাঁ চকচকে কোভিড কেয়ার ইউনিটের উদ্বোধন হয় ইসলামিয়া হাসপাতালে, যেখানে ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকল কোভিড রোগীর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *