আন্তর্জাতিক অর্থনীতি বিনোদন

ফূর্তি করলে মিলবে ঘর। বাড়ি ভাড়ার আজব শর্তে অবাক নেটাগরিকরা।

বিউরোঃ এক বাড়িওয়ালার ভাড়ার শর্ত দেখে অবাক হবেন, না কি রাগবেন বুঝে উঠতে পারছেন না নেটাগরিকরা। চার বেডরুমের বাড়ির ওই মালিক বিজ্ঞাপনে জানিয়েছেন, তিনি ৪০ বছরের পুরুষ। তাঁর বাকি দুই ভাড়াটে ২০ বছরের মহিলা। তৃতীয় ভাড়াটে হিসেবে তিনি এমন কাউকে চান, যিনি তাঁদের এই ‘কমিউনিটি’তে আরও ফূর্তি আনবেন। এমনকি তৃতীয় ব্যক্তিটি বাকি দু’জনের মতো বাড়ি থেকে কাজ করলে ভাল হয় বলেও বিজ্ঞাপনে উল্লেখ করেছেন তিনি।

বাড়িওয়ালা ডাবলিনের বাসিন্দা। নাম প্রকাশ না করে তিনি বিজ্ঞাপনের ওই বয়ানটি পোস্ট করেছেন বাড়ি ভাড়া সংক্রান্ত নেটমাধ্যমের একটি অ্যাকাউন্টে। যা পোস্ট হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই ছড়িয়ে পড়েছে নেটমাধ্যমে। নেটাগরিকদের বিস্ময় বাড়িয়েছে ভাড়া সংক্রান্ত বাড়িওয়ালার বক্তব্য।

তিনি লিখেছেন, ‘ডাবলিনের স্যান্ডিমাউন্টে সৈকতের ধারেই চার শয্যার ওই বাড়ি। তবে ভাড়া বাজার দরের থেকে অনেকটাই কম।’ কারণ তাঁর ‘বাড়ি ভাড়া দেওয়ার লক্ষ্য উপার্জন নয়। বরং এমন একজনকে তিনি চান, যিনি তাঁদের কমিউনিটিতে ফূর্তি আনবেন।’

বিজ্ঞাপনের বয়ানে ওই বাড়িওয়ালা স্পষ্ট করেই জানিয়েছেন নিজের শর্তের কথা। বলেছেন, ‘এই মুহূর্তে যাঁরা বাড়িতে আছেন, তাঁদের মধ্যে প্রথম জন হলেন বাড়ির মালিক, বয়স ৪০। ইনি একজন অবসর নেওয়া মানুষ এবং বাগানপ্রেমী। দ্বিতীয় জন ব্রাজিলের মহিলা। বয়স ২০ বছর। ইনি বাড়ি থেকে কাজ করেন। তৃতীয় জন স্নাতকোত্তর ছাত্রী। এঁরও বয়স ২০। ইনি আমেরিকার বাসিন্দা।’

এরপরই বিজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে, ‘তৃতীয় ভাড়াটে একজন লেখক বা শিল্পী হলে ভাল হয়। তবে তাঁকেও বাড়িতে থেকে কাজ করতে হবে। আমি চাই না, তিনি আধুনিক ইঁদুর দৌড়ের সদস্য হোন।’

বিজ্ঞাপন দাতার এই বয়ান দেখে নেটাগরিকদের একাংশ ওই ব্যাক্তিকে উদ্ভট বলে মন্তব্য করেছেন। অন্য একটি দল অবশ্য তাঁর দাবিকে সমর্থন করে জানিয়েছেন, এতে উদ্ভট ভাবার কী আছে! এমনও তো হতে পারে উনি নিজের আশপাশে ভাল পরিবেশ তৈরি করতে চাইছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *