জেলার খবর রাজনৈতিক খবর

পেট্রোল ও গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধিতে এবং বিধানসভায় ভাঙচুরের প্রতিবাদে মিছিল সরিষায়।

করোনা পরিস্থিতিতে দেশের ব্যবসা বাণিজ্যের আর্থিক পরিকাঠামো নিম্নমুখী। গত দেড় বছরে পর্যায়ক্রমিক লকডাউনের ফলে দেশের আর্থিক পরিকাঠামো একেবারেই ভেঙে গেছে। ব্যবসা বাণিজ্য বন্ধ , সাধারণ মানুষের ইনকামের রাস্তাটা ক্রমশ সঙ্কীর্ণ। পকেটে টাকা নেই , কিন্ত বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধি , সাধারণ মানুষের প্রান আজ ওষ্ঠাগত। বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধির সাথেই লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে পেট্রোল , ডিজেল সহ জ্বালানীর মূল্য।

পেট্রোল আজ পার করেছে সেঞ্চুরির গণ্ডি। একই অবস্থায় দাঁড়িয়ে ডিজেল। প্রতিবাদে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বারবার সুর চড়িয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। এবার আবারও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে পেট্রোল , ডিজেল সহ রান্নার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে পথে নামল ডায়মন্ড হারবার ২ নং ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস এবং তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। সরিষা নারায়ণ তলা মোড় থেকে কলাগাছিয়া পর্যন্ত দীর্ঘ প্রায় কয়েক কিলোমিটার প্রতিবাদ মিছিলে সামিল কয়েক হাজার তৃণমূল কর্মী-সমর্থক। মিছিল থেকেই কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে স্লোগান তোলেন তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব।

মিছিলে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক পান্নালাল হালদার , ব্লক সভাপতি অরূময় গায়েন , সরিষা অঞ্চলের যুব নেতা শামীম আহমেদ , ব্লক যুব সভাপতি মাহাবুবার রহমান গায়েন , ২ নং ব্লক কিষাণ সেলের সভাপতি নীতিশ মোদক সহ একাধিক তৃণমূল নেতৃত্ব। মিছিলে দলীয় পতাকা হাতে মহিলা কর্মী-সমর্থক সহ বৃদ্ধদের উপস্থিতি ছিল বেশ। পেট্রোল , ডিজেল সহ রান্নার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে মিছিল থেকেই ১১৭ নং জাতীয় সড়কের উপরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কুশপুতুল দাহ করেন তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব।

মিছিল থেকেই কেন্দ্রের মোদী সরকারকে উৎখাতের ডাক দেন তৃণমূল নেতৃত্ব। মিছিল থেকেই বারবার পেট্রোল-ডিজেল সহ রান্নার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধিতে কেন্দ্রীয় সরকারকে দুষেছেন ব্লকের সভাপতি অরুময় গায়েন। ২০১৪ সালের ১৬ মে কেন্দ্রে এনডিএ সরকার ক্ষমতায় আসার পরে এখনও পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে একাধিকবার বেড়েছে জ্বালানীর মূল্য। এর আগেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে একাধিকবার কেন্দ্রের বিরুদ্ধে পথে নেমেছিল তৃণমূল। প্রয়োজনে আগামী দিনেও সাধারণ মানুষের স্বার্থে পথে নামবে দল।

মানুষ কি খাবে , কি করে সংসার চালাবে সেই চিন্তায় বিভোর ঠিক তখনই মধ্যবিত্তের পেটে লাথি মেরে বেড়েছে জ্বালানির মূল্য। সরকারের লক্ষ্য ছিল , তেলের দাম কম থাকতে থাকতে যতটা সম্ভব রাজকোষ ভরিয়ে নেওয়া। উদ্দেশ্য সফল হয়েছে মোদী সরকারের। বারবার পেট্রোল-ডিজেল সহ রান্নার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধিতে নাভিশ্বাস উঠছে আমজনতার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *