জেলার খবর

নাতনিকে ধর্ষণ দাদুর! গর্ভবতী নাবালিকা! ভয়াবহ কাণ্ড ঘটাল ধর্ষিতার বাবা মা!

জলপাইগুড়ি: রানীরহাটের দাদুর হাতে লাগাতার ধর্ষণে গর্ভবতী নাবালিকা, সংসারের অশান্তিতে বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা নাবালিকার বাবা মায়ের। বর্তমান জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে বিষ খাওয়া দম্পতি।রান্না করার নামে ১৩ বৎসরের এক নাবালিকা মেয়েকে ডেকে ধর্ষণের অভিযোগ ষাট বছরের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এই ন্যক্কারজনক ঘটনায় তাজ্জব হয়েছে রানীরহাটের চৌরঙ্গী সংলগ্ন একটি গ্রামের স্থানীয়রা। নির্যাতিতা নাবালিকা সম্পর্কে অভিযুক্তের নাতনি।

ঘটনাটি দেড় দুই মাস আগের। স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে নাবালিকা নাতনিকে  রান্না করার অজুহাত দেখিয়ে, ফাঁকা বাড়িতে নিয়ে যেতেন ওই ব্যাক্তি। ফাঁকা বাড়ির সুযোগ নিয়ে সম্পর্কে নাবালিকা নাতনিকে ধর্ষণ করতেন দাদু।শুধু তাই নয়, বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য নিগৃহিতার পরিবারকে রীতিমতো হুমকি পর্যন্ত দেন অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির তিন জামাই।

সুবিচারের আশায় স্থানীয় মেখলিগঞ্জ থানার দ্বারস্থ হন নাবালিকার পরিবার। অভিযুক্ত, ওই ব্যাক্তির তিন জামাইয়ের নামেও মামলা দায়ের করেন নির্যাতিতার পরিবার। অভিযোগ পাওয়ার পর মেখলিগঞ্জ থানার পুলিশ মূল অভিযুক্ত দাদুকে গ্রেফতার করেছে। এই ঘটনার জেরে সোমবার সকালে নাবালিকার বাবা মা নিজ বাড়িতে বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। স্থানীয়রা উদ্ধার করে মেখলিগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখান থেকে স্থানান্তরিত করে দেয় কর্তব্যরত চিকিৎসকরা। বর্তমানে জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে নাবালিকার বাবা মা। এ নিয়ে মাথাভাঙা জোনের কোচবিহার জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অমিত ভার্মা জানান, বিষয়টা খোঁজ নিয়ে দেখা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *