স্বাস্থ্য

গরমে বাড়ছে হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি! কিভাবে হার্টের রোগীরা নিজেদের খেয়াল রাখবেন??

তনুশ্রী ভান্ডারী ডেস্ক ঃ-

আমরা অনেকেই জানি যে শীতে সমস্যা বাড়ে হার্টের রোগীদের। দেখা গেছে যে, শীতেই হার্ট সংক্রান্ত রোগগুলো বেশি করে উঁকি দেয়। এমনকি প্রচণ্ড ঠান্ডায় হার্ট অ্যাটাকের (Heart Health) ঝুঁকিও বেড়ে যায় দ্বিগুণ। একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে, আসলে আবহাওয়ার এই হঠাত্‍ পরিবর্তন হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বাড়ায়।
কিন্তু এখন তো শীতকাল নয়। বরং তাপমাত্রা যে ভাবে বেড়ে চলেছে তাতে বেঁচে থাকা দায় হয়ে পড়েছে। তাহলে এখানেও কি হার্ট অ্যাটাকের (Heart Attack) ঝুঁকি রয়েছে? আলবাত রয়েছে। গরমের হৃদরোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে হিট স্ট্রোকের (Heat Stroke) ঝুঁকি বেশি থাকে, যা শীতের চেয়েও গুরুতর অবস্থা। গরমের (Summer) মরসুমে শুধু যে পরিবেশে তাপমাত্রা বাড়ে তা নয়, আমাদের শরীরেও হিট তৈরি হয়। আর তখনই ঘটে হিট স্ট্রোক।

আরেকটু সহজ ভাবে বলা যাক। প্রচণ্ড গরমে শরীরের তাপমাত্রাও বেড়ে যায়। এই সময় আমাদের হৃদপিণ্ড দ্রুত স্পন্দিত হয় এবং রক্ত ​​পাম্প করার জন্য একে বেশি পরিশ্রম করতে হয়। এই কারণে ত্বকের সারফেসে ঘাম তৈরি হয়। এই ঘাম আমাদের শরীরকে শীতল রাখতে সাহায্য করে। যদি আপনার শরীর নিজে থেকে ঠান্ডা হতে পারে না, তখন সমস্ত হৃদপিণ্ড সহ শরীরের অন্যান্য অঙ্গগুলির উপর পড়ে এবং তাদের ক্ষতি করে। তখন যে মারাত্মক অবস্থা ঘটে তাকেই হিট স্ট্রোক বলা হয়। যে সব ব্যক্তিদের মধ্যে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি কিংবা অন্যান্য কার্ডিওভাসকুলার রোগ আছে বা হৃদরোগ আক্রান্ত হয়েছেন, এমন ব্যক্তিদের মধ্যে গরমে হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি বেশি।

কীভাবে এড়ানো যায় হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি?

বেশি করে জল পান করুন- বিশেষজ্ঞদের মধ্যে গরমকালে হাইড্রেট থাকলে অনেক রোগ কমে যায়। তাই এই সময় বেশি করে জল পান করুন। এর সঙ্গে ফলের রস, মরসুমি ফল এবং ডাবের জলও পান করতে পারেন।

দিনের বেলা বাইরে যাবেন না- বেলা ১১টা থেকে বিকেল ৪টে পর্যন্ত সূর্যের প্রখর তাপে হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে। চেষ্টা করুন এই সময় ঘরের ভিতরই থাকার। বিশেষত আপনি যদি হার্টের রোগী হন। আর যদি বাইরে বের হন তাহলে সঙ্গে ছাতা, জলের বোতল রাখুন।

নিয়মিত ব্যায়াম করুন- হার্টের রোগীরা বেশ কিছু ব্যায়াম করতে পারেন। এর জন্য বিশেষজ্ঞের সাহায্য নিন। চেষ্টা করুন একদম ভোরে কিংবা রাতে ব্যায়াম করার। যোগাসনও করতে পারেন। ঘাম বাড়তে শুরু করলে, হৃদস্পন্দন বেড়ে গেলে বা বুকে ব্যথা শুরু হলে দেরি না করে চিকিত্‍সকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

নিয়মিত চেকআপ করুন- আবহাওয়া যাই হোক না কেন, হৃদরোগীদের সবসময় নিয়মিত চেকআপ করাতে হবে। এটির সাহায্যে, আপনি নিজের ভাল যত্ন নিতে সক্ষম হবেন এবং একই সঙ্গে গুরুতর পরিস্থিতি এড়াতে পারবেন। আর আপনি যদি হার্টের রোগী হন বা আপনার যদি উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা থাকে, তাহলে কোনও ভাবে ওষুধ খাওয়া এড়াবেন না। একদিন ওষুধ না খেলেও মারাত্মক পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে এই সব রোগীদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *