রাজনৈতিক খবর রাজ্যের খবর

ক্যামাক স্ট্রিটে অভিষেকের অফিসে আধ ঘণ্টা বৈঠক করে গেলেন রাজীব, তৃণমূলে ফেরা নিয়ে জল্পনা

ডেস্ক:- সপুত্র মুকুল রায় ফিরেছেন। বিজেপি-তে কখনও যান-ই নি বলে দাবি করেছেন সুনীল মণ্ডল। শুক্রবার তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক ব্যানার্জীর সঙ্গে সাক্ষাতের পর এ বার রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘ঘর ওয়াপসি’ নিয়েও জল্পনা জোর পেল। তৃণমূল সূত্রে খবর, শুক্রবার অভিষেকের ক্যামাক স্ট্রিটের অফিসে গিয়েছিলেন রাজীব। সেখানে আধ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে কথা হয় দু’জনের মধ্যে। যদিও তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব রাজীবের প্রত্যাবর্তন নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ। শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত অভিষেকের সঙ্গে সাক্ষাৎ নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি রাজীব নিজেও।

ভোটের আগে অমিত শাহের পাঠানো চার্টার্ড বিমানে চেপে দিল্লিতে গিয়ে বিজেপি-তে যোগ দেন রাজীব। কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনে গেরুয়া শিবির দুই অঙ্কে থেমে যাওয়ার পর থেকেই দলীয় নেতৃত্বের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রেখে চলছেন তিনি। শুধু তাই নয়, ভোট পরবর্তী হিংসার অভিযোগে রাজ্যের বিজেপি নেতারা যখন সরব, সেই সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তাঁর নির্বাচিত সরকারের সপক্ষে প্রকাশ্যেই মুখ খোলেন রাজীব।

এর পরেই ১১ জুন মুকুল তৃণমূলে ফেরার পর দিনই তৃণমূলের তৎকালীন মুখপাত্র কুণাল ঘোষের সঙ্গে দেখা করেন রাজীব। বর্তমানে কুণাল দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক। রাজীবের সঙ্গে দেখা করাকে কুণাল ‘সৌজন্য সাক্ষাৎ’ বলে উল্লেখ করলেও, তৃণমূলের অনেকেই তাঁদের এই সাক্ষাৎ ভাল ভাবে নেননি। তাঁদের অন্যতম তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। দলনেত্রী নিজে যেখানে বিশ্বাসঘাতকদের দলে না নেওয়ার কথা বলেছেন, সেখানে রাজীবকে ফেরত নেওয়ার সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়ে দেন তিনি। তবে শেষ পর্যন্ত তৃণমূলনেত্রী এবং অভিষেকই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন, এ কথাও বলেন কল্যাণ। তাই সব দরজা পেরিয়ে, রাজীব অভিষেকের কাছে পৌঁছনোয়, তাঁর তৃণমূলে ফেরা নিয়ে নতুন করে চর্চা শুরু হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *