স্বাস্থ্য

কন্ডোমে রেড হট সস ব্যবহারের ট্রেন্ড ডেকে আনছে আপনার জীবনে সর্বনাশ! সতর্কতা জারি চিকিৎসামহলে!!

তনুশ্রী ভান্ডারী ডেক্স ঃ-আজকাল সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি অদ্ভুত জিনিস ট্রেন্ড হচ্ছে। কেউ কেউ ইন্টারনেটে কন্ডোমে গরম গরম লাল মরিচের সস ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়েছিলেন, যা অনেকেই অনুসরণ করতে শুরু করেছেন। 

সোশ্যাল মিডিয়াকে আজকাল প্রায় আমরা সবাই প্রতিদিনের ব্যবহারিক জীবনের সঙ্গী করে নিয়েছি। এটি এমন একটি প্ল্যাটফর্মে পরিণত হয়েছে যেখানে অনেক মানুষই অন্যদের সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের তথ্য ভাগ করে নেয়। কিন্তু এ কথাও আমরা জানি যে ইন্টারনেটের পাওয়া প্রতিটি তথ্যই সঠিক নয়। আর এ ব্যাপারে কোনও সন্দেহের অবকাশও নেই যে ঠিকঠাক গবেষণা না করেই অনেকে এসব তথ্য অনায়াসে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেন (Hot Sauce In Condoms)।
সম্প্রতি ডা. এরিম চৌধুরি (Dr Earim Chaudry) ইন্টারনেটে এমনই একটি নতুন ধরনের তথ্য অনুসরণে বাস্তবতা মানুষের সামনে তুলে ধরেছেন। আসলে কিছু দিন যাবৎ দেখা যাচ্ছে অনেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ড হওয়া কন্ডোমে রেড হট সস ব্যবহারের ঘটনাটি যাচাই করতে নিজেদের ব্যক্তিগত জীবনে এমন পরীক্ষা চালাচ্ছেন। চিকিৎসকরা কিন্তু এ বিষয়ে রীতিমতো সতর্কতা জারি করেছেন।

ডা. এরিম চৌধুরিগর্ভধারণ রোধ করতে কন্ডোমে সস ঢালার প্রবণতা অনুসরণ না করার জন্য জনগণকে অনুরোধ করেছেন। মেনস হেলথ প্ল্যাটফর্মের ডিরেক্টর ডক্টর এরিম জানিয়েছেন, কেউ যেন ভুল করেও বেডরুমে ইন্টিমেট হতে গিয়ে এই সব পরীক্ষা-নিরীক্ষা না চালান। তিনি আরও বলেন, গোপনাঙ্গে এই হট চিলি সস লাগালে উত্তেজনা কম হবে এবং ব্যথা বেশি হবে।ডাক্তার এরিম আরও বলেন, বেডরুমে ইন্টিমেসির ওপর পরীক্ষা-নিরীক্ষার নামে খাবার-দাবার ব্যবহার করা সাধারণ ব্যাপার। কিন্তু এটা স্পষ্ট যে লাল হট সসের ব্যবহার ভুলেও করা উচিত নয়। গরম সসে উপস্থিত রাসায়নিকগুলি যে কোনও ব্যক্তির ক্ষেত্রে মারাত্মক রকমের জ্বলুনির অনুভূতি দিতে পারে। এই কারণে মিলনের সময় মারাত্মক ব্যথা এবং জ্বালা অনুভব হওয়া স্বাভাবিক। পুরুষদের গোপনাঙ্গে প্রায় চার হাজার নার্ভ থাকে। এছাড়াও, মহিলাদের গোপনাঙ্গে এই নার্ভের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ। এমতাবস্থায় রেড হট সসের ব্যবহারে যে তীব্র ব্যথা এবং জ্বালা অনুভূত হবে সেটাই স্বাভাবিক।
প্রবণতা অনুসারে, লাল সসে এমন রাসায়নিক রয়েছে, যার কারণে শুক্রাণুর মৃত্যু ঘটে। এটি গর্ভবতী হওয়ার প্রতিটি নিশ্চিত সম্ভাবনাকে হত্যা করে। এ কারণে অনেকেই এই ট্রেন্ড অনুসরণ করার চেষ্টা করছেন। কিন্তু চিকিৎসকদের মতে এর পরিণতি ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারে। তাই অযথা ট্রেন্ড অনুসরণ না করে এই জাতীয় দুর্ঘটনা থেকে দূরে থাকাই ভালো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *