রাজ্যের খবর স্বাস্থ্য

”একজন সাধারন মানুষ নিয়মিত তিরিশ মিনিট ধ্যান করে আধ্যাত্মিক এবং সামগ্রিক উন্নতি করতে পারে” : পরম পূজ্য শ্রী শিবকৃপানন্দ স্বামীজি।

”একজন সাধারন মানুষ নিয়মিত তিরিশ মিনিট ধ্যান করে আধ্যাত্মিক এবং সামগ্রিক উন্নতি করতে পারে” : পরম পূজ্য শ্রী শিবকৃপানন্দ স্বামীজি।

গুরুতত্ত্ব দ্বারা ৮ দিনের হিমালয়ান মহাশিবিরের বিশাল আয়োজন : ১৯ – ২৬ শে ডিসেম্বর ২০২৩

বর্তমান প্রতিযোগিতার যুগে একজন ব্যক্তিকে শৈশব থেকেই নানা রকম মানসিক চাপের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়। প্রতিটি মানুষই কোন না কোন হতাশা, অভাববোধ বা দুঃখের মধ্যে থাকেন। আর বাহ্যিক উপকরণ ও প্রচেষ্টার মাধ্যমে তা দূর করার চেষ্টা করেন। কিন্তু দুঃখ দূর করার সমাধান তো বাইরে নয় নিজের ভিতরেই আছে। এমত পরিস্থিতিতে হিমালয় মহর্ষি শ্রী শিবকৃপানন্দ স্বামী মানুষকে ধ্যানমগ্ন করে সমগ্র বিশ্বকে অন্তরের শান্তির পথ দেখিয়েছেন। এই ধ্যান একটি সহজ এবং আধ্যাত্মিক অভিজ্ঞতা ভিত্তিক আত্ম অনুভূতির সংক্রমণ যার মাধ্যমে মানুষ দৈনিক ৩০ মিনিট ধ্যান করে তার সামগ্রিক আত্মিক উন্নতির মাধ্যমে জীবনের সমস্যাগুলি সমাধান করে সমস্যা মুক্ত জীবন যাপন করতে পারবেন ।এটি একটি পবিত্র আত্মার মাধ্যমে অন্য এক পবিত্র আত্মার ভেতর প্রবাহিত মূল্যবোধের সংক্রমণ, যার মাধ্যমে যে কোন মানুষ নিরাপত্তা ও আভ্যন্তরীণ শান্তির অনুভূতি পেতে পারেন।

হিমালয় ধ্যানের মহাশিবির নাগপুরে ১৯ শে ডিসেম্বর থেকে ২৬ শে ডিসেম্বর, ২০২৩ বিকেল ৫ টা থেকে রাত ৮:৩০ পর্যন্ত রেশমি বাগ ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে হিমালয়ের রহস্য উন্মোচনকারী পরম পূজ্য শ্রী শিবকৃপানন্দ স্বামীজীর চৈতন্যপুর্ন উপস্থিতিতে। এই শিবিরটি জাতি ধর্ম ভাষা দেশ বা লিঙ্গ নির্বিশেষে সবার জন্য বিনা মূল্যে উন্মুক্ত। পরম পূজ্য শ্রী শিবকৃপানন্দ স্বামীজী ব্যাখ্যা করেছেন যে আজকের আধুনিক পরিবেশে যেখানে মনকে বিভ্রান্ত করার জন্য অনেকগুলি সরঞ্জাম এবং মাধ্যম রয়েছে সেখানে একজন সাধারণ মানুষ কেবল নিয়মিত ধ্যান সাধনা করেই নিজের আধ্যাত্মিক এবং সামগ্রিক উন্নতি করতে পারবেন।

হিমালয় ধ্যান এক মূল্যবোধের সংস্কার ঘটায় যেখানে কোন শারীরিক ক্রিয়া-কলাপ বা জটিল পদ্ধতি অবলম্বনের প্রয়োজন হয় না। এই ধ্যান সাধনা সহজ সরল অনুভূতির মাধ্যমে আত্মার আলোকময় জাগৃতির যাত্রা। প্রত্যহ ৩০ মিনিট ধ্যান আপনার জীবনে শুভ পরিবর্তনের সূচনা করতে পারে। আপনি যদি ধ্যান করেন তাহলে আপনার অবচেতন মন (চিত্ত) শক্তিশালী হবে এবং আরো পবিত্র হবে। আপনি সবাইকে বদলাতে পারবেন না তবে ধ্যান করে অবশ্যই নিজেকে পরিবর্তন করতে পারবেন।

হিমালয় ধ্যান পদ্ধতি হল ৮০০ বছরের এক প্রাচীন ধ্যান সংস্কার যা মহামহিম শ্রী স্বামীজি হিমালয়ের গহ্বর থেকে এনে সমাজে স্থাপন করেছেন | আজ বিশ্বব্যাপী লক্ষ লক্ষ মানুষ স্ব-বিবর্তনের পথে হাঁটার জন্য এই ধ্যানে অংশগ্রহণ করছেন | এই ধ্যান পদ্ধতি যেকোন ব্যক্তির শারীরিক, মানসিক, সামাজিক ও আধ্যাত্মিক বিকাশ ঘটায় | ধ্যানের মাধ্যমে aura বা আভামণ্ডল এক প্রতিরক্ষামূলক ঢাল তৈরি করে যে ইতিবাচক শক্তি ভালো স্বাস্থ্য এবং মানসিক ভারসাম্য নির্মাণ করে। মেডিটেশন ছাত্র এবং যুবকদের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে এবং সৃজনশীল শক্তির বিকাশ ঘটাতে এবং সাফল্য অর্জনে সাহায্য করে। পরম পূজ্য স্বামীজীর উপস্থিতিতে এই শিবিরটি প্রতিটি হৃদয়ে চৈতন্যপূর্ণ আধ্যাত্মিক অভিজ্ঞতার সঞ্চার ঘটাবে।

এই অনুষ্ঠানের সরাসরি সম্প্রচার করা হবে গুরুতত্ত্ব ইউ টিউব চ্যানেলে (https://www.youtube.com/@GuruTattva)। বিশ্বব্যাপী লোকেরা তাদের ঘরে বসে এই শিবিরে যোগ দিতে পারবেন । তদুপরি ভারত ও বিদেশ থেকে হাজার হাজার মানুষ এই শিবিরে যোগ দেবেন যার প্রস্তুতিতে ১৫০০ জনেরও বেশি গুরুতত্ত্ব স্বেচ্ছাসেবক বর্তমানে নাগপুরে কাজ করছেন।

গুরুতত্ত্ব সকলের জন্য হার্দিকভাবে যুগোপযোগী, অত্যন্ত প্রয়োজনীয়, সহজে অনুকরণ যোগ্য এই ধ্যান শিবিরে সকলকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছে। আরও তথ্যের জন্য যোগাযোগ করুন গুরুতত্ত্ব মিডিয়া ইনচার্জ শ্রী শৈলেশ রুদানির সাথে (যোগাযোগ নং: ৯৮২৫২৭৬৩৫৩)|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *