Blog

ইনস্টাগ্রাম -হোয়াটসঅ্যাপ- ফেসবুক অনলাইনের সুযোগে পর্ণহাবের ট্রাফিক বৃদ্ধি!!

বিউরো ঃ- গত সোমবার হঠাত্‍ করেই বন্ধ হয়ে গিয়েছিল ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম এবং হোয়াটসঅ্যাপ সহ মার্ক জুকেরবার্গেরহ। মালিকানাধীন প্ল্যাটফর্মগুলি। প্রায় ছ’ঘণ্টা অচল ছিল এই সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলি। আর সেই সুযোগে নিজের ভিউয়ার্স বাড়িয়ে নিয়েছে বিশ্বের জনপ্রিয় পর্নোগ্রাফি পোর্টাল পর্নহাব

ওই সময়ের মধ্যে পর্নহাবের ট্রাফিক ১০.৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এক কথায় ফেসবুকের ঐতিহাসিক বিভ্রান্তি সাহায্য করেছে পর্নহাবকে। একটি বড় কারিগরি বিভ্রান্তির কারণে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ ও ইনস্টাগ্রাম বন্ধ হয়ে যাওয়ায় লোকেরা সময় কাটাতে ভিড় জমায় পর্নোগ্রাফি ওয়েবসাইটে।

প্রতি ঘণ্টায় ফেসবুকের সেবা ক্ষতিগ্রস্ত হতে থাকার সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে শুরু করে পর্নহাব ব্যবহার। এই সময়ের মধ্যে পর্নহাব অর্ধ মিলিয়ন অতিরিক্ত ব্যবহারকারী অর্জন করে। ফেসবুকের আউটেজ সময় ছিল ঐতিহাসিক, যা ২০০৮ সালের পর ফেসবুকে সবচেয়ে বড় ব্যাঘাতের ঘটনা। একটি বাগের জন্য এই সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইট অফলাইনে যেতে বাধ্য হয়। ইনস্টাগ্রাম এবং হোয়াটসঅ্যাপ সহ সমস্ত ফেসবুক পরিষেবার কেন্দ্রীকরণ এই ব্যাপক বিভ্রান্তির দিকে নিয়ে যায়। ফলে তিনটি প্ল্যাটফর্মের সমস্ত পরিষেবা অফলাইনে চলে যায়।

প্রায় প্রতিটি ফেসবুক পরিষেবা সেদিন প্রভাবিত হয়েছিল, এমনকি এর কর্পোরেট পরিকাঠামো বিঘ্নিত হয়। যার ফলে তদন্তের জন্য ইঞ্জিনিয়াররাও ফেসবুকের হেড অফিসে ঢুকতে বা লগইন করতে ব্যর্থ হয়। ফেসবুক সার্ভারের কনফিগারেশন সুইচ অফ হয়ে যাওয়ায় পর্নহাবকে কিন্তু ফেসবুকের বিভ্রান্তিকে পুঁজি করার প্রয়োজন হয়নি, শুধুমাত্র নিজের অস্তিত্বের জন্যই তাদের ট্রাফিক বৃদ্ধি পেয়েছে। এক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য যে, পর্নোগ্রাফি ওয়েবসাইট এবং পর্ন হোস্ট করা সমস্ত পোর্টাল ভারতে নিষিদ্ধ। তবে ব্যক্তিগতভাবে পর্ন দেখা যদিও বেআইনি নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *