আন্তর্জাতিক অর্থনীতি প্রযুক্তি

আবার বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর হংকং।

বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় এবার নিয়ে টানা তিনবার শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে হংকং। অন্যদিকে সবচেয়ে কম ব্যয়ের শহর নাইজেরিয়ার রাজধানী আবুজা। ঢাকার অবস্থান গত বছরের তুলনায় ১৪ ধাপ বেড়ে ১৪০-এ উঠে এসেছে। গত বছর ঢাকার অবস্থান ছিল ১৫৪তম।

 

গত সোমবার মার্সার কস্ট অব লিভিং সার্ভে থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। বিশ্বের ২২৬টি শহর নিয়ে এই জরিপ করা হয়েছে। জরিপটিতে প্রতিটি শহরের পরিবহন, খাদ্য, পোশাক, গৃহস্থালিসামগ্রী, বিনোদনসহ ২০০-এর বেশি সূচক বিবেচনা করা হয়েছে। এরপর বিভিন্ন শহরের মধ্যে জীবনযাত্রার ব্যয়ের মধ্যে তুলনামূলক হিসাব করা হয়েছে।
চলতি বছর বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহরের মধ্যে হংকংয়ের পরেই রয়েছে এশিয়ার আরেক শহর সিঙ্গাপুর। এরপর তৃতীয়, চতুর্থ, পঞ্চম ও ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে সুইজারল্যান্ডের চারটি শহর জুরিখ, জেনেভা, বাসেল ও বার্ন। সপ্তম নিউইয়র্ক, অষ্টম লন্ডন, নবম বাহামা দ্বীপপুঞ্জের নাসাউ ও দশম অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেস।
মার্সার কস্ট অব লিভিং সার্ভের প্রতিবেদনে বলা হয়, চলতি বছর জীবনযাত্রার মান বাড়ার পেছনে এককভাবে বড় ভূমিকা রেখেছে বাসাভাড়া। জরিপভুক্ত শহরগুলোর বাসিন্দাদের আয়ের একটি বড় অংশই ব্যয় করতে হয় বাসা ভাড়ায়। ২০২৩ ও ২০২৪ সালের মধ্যে বিশ্বের প্রায় সব শহরে বিভিন্ন জিনিসের দাম বাড়লেও বাসা ভাড়ার বৃদ্ধি ছিল সবচেয়ে বেশি। এরপর মূল্যস্ফীতি ও স্থানীয় মুদ্রার মান ওঠা-নামাও শহরগুলোর বাসিন্দাদের আয়-ব্যয়কে সরাসরি প্রভাবিত করেছে।

সমীক্ষার তথ্যমতে, চলতি বছর বিশ্বের সবচেয়ে কম ব্যয়ের শহরগুলোর মধ্যে আবুজার পরেই রয়েছে নাইজেরিয়ার আরেক শহর লাগোস। এরপর রয়েছে যথাক্রমে পাকিস্তানের ইসলামাবাদ, কিরগিজস্তানের বিশকেক, পাকিস্তানের করাচি, মালাবি প্রজাতন্ত্রের শহর ব্লানটায়ার, তাজিকিস্তানের রাজধানী দুশানবে, দক্ষিণ আফ্রিকার শহর ডারবান, নামিবিয়ার রাজধানী উইন্ডহোক ও কিউবার রাজধানী হাভানা।

*সিএনএন*

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *