দেশের খবর প্রযুক্তি

অবশেষে ভারতীয় রেল সাত কর্মীকে বরখাস্ত করল বালেশ্বর ট্রেন দুর্ঘটনায় কর্তব্যে গাফিলতির দায়ে।

কমিশনার অব রেলওয়ে সেফটির রিপোর্ট জমা পড়ার পরই, বালেশ্বর ট্রেন দুর্ঘটনায় কর্তব্যে অবহেলার অভিযোগে সাতজন কর্মীকে বরখাস্ত করল ভারতীয় রেল। তাদের মধ্যে আছেন, কর্তব্যরত স্টেশন মাস্টার অরুণ কুমার মোহান্ত, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মহম্মদ আমির খান এবং টেকনিশিয়ান পাপ্পু কুমার। এই তিনজনকে ইতিমধ্য়েই গ্রেফতার করেছে সিবিআই। এই প্রসঙ্গে দক্ষিণ-পূর্ব রেলওয়ের জেনারেল ম্যানেজার অনিল কুমার মিশ্র বলেন, “ওই আধিকারিকরা সতর্ক থাকলে দুর্ঘটনা এড়ানো যেত। রেলওয়ে এখনও পর্যন্ত সাতজন কর্মচারীকে সাসপেন্ড করেছে। এর মধ্যে তিনজনকে সিবিআই গ্রেফতার করেছে। নিয়ম অনুসারে, ২৪ ঘন্টার জন্য কোনও সরকারি কর্মচারী গ্রেফতার হলেই তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়।”

উল্লেখ্য, ২ জুন বালাসোর জেলার বাহানাগা বাজার রেলওয়ে স্টেশনের কাছে একটি দাঁড়িয়ে থাকা পণ্যবাহী ট্রেনে ধাক্কা মেরেছিল করমন্ডল এক্সপ্রেস। বেশিরভাগ কোচই লাইনচ্যুত হয়েছিল। লাইনচ্যুত করমণ্ডল ট্রেনের কোটের সঙ্গে ধাক্কা লেগে লাইচ্যুত হয় উল্টো দিক থেকে আসা বেঙ্গালুরু-হাওড়া সুপারফাস্ট এক্সপ্রেসও। তিনটি ট্রেনের এই দুর্ঘটনায় ২৯৩ জন নিহত এবং ১২০০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হয়েছিলেন। এই ঘটনায়, কর্তব্যে গাফিলতির দায়ে এর আগেই ওই তিন কর্মচারীকে গ্রেফতার করেছিল সিবিআই। মঙ্গলবার তাদের সিবিআই আদালতে পেশ করা হয়েছিল। বুধবার থেকে তাঁদের আরও চার দিনের জন্য হেফাজতে নিয়েছে সিবিআই।

এই ঘটনার সমান্তরাল তদন্ত করেছে সাউথ ইস্টার্ন সার্কেল কমিশনার অব রেলওয়ে সেফটি বা সিআরএস। তাদের তদন্তে জানা গিয়েছে, স্টেশনের উত্তর দিকের সিগন্যাল গুমটিতে সিগন্যালিং সার্কিট পরিবর্তনে ত্রুটি ছিল। আর সেই কারণেই এই ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটেছে। বুধবারই দক্ষিণ-পূর্ব রেলওয়ের নতুন জেনারেল ম্যানেজার এবং ডিআরএম বাহানাগা বাজার এবং বালেশ্বর রেলওয়ে স্টেশন পরিদর্শন করেছিলেন। সাংসদ প্রতাপ সারঙ্গীকে সঙ্গে নিয়ে গোপীনাথপুর রেলস্টেশনও পরিদর্শন করেন তাঁরা। এরপরই, এই সাত কর্মীকে বরখাস্ত করা হল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *