রাজ্যের খবর দেশের খবর স্বাস্থ্য

অবলা প্রাণীদের গায়ে রং দিলে ৬ মাসের জেল।

‘মজা’ পেতে প্রতি বছরই দোলে পথকুকুরদের গায়ে রং লাগান একশ্রেণির মানুষ। বাদ যায় না গরু, বেড়াল-সহ অন্য অবলা প্রাণীরাও। এই প্রবণতা আটকাতে প্রচারও চলে। তা সত্ত্বেও সেভাবে সচেতনতা তৈরি হয়নি, ‘মানবিকতা” ফেরে না একাংশের। এবারের দোল ও হোলিতে এ নিয়ে কড়া ব্যবস্থা নিতে চলেছে বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেট। কুকুর, বেড়াল, গরুর গায়ে কেউ রং ছেটালে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশকর্তারা, ৬ মাসের জেলও হতে পারে।


পথকুকুরদের পক্ষেরং ভীষণ বিপজ্জনক বলে জানিয়েছেন পশু চিকিৎসকেরা। বিশেষজ্ঞদের মতে, কুকুরের চামড়া মানুষের চামড়ার তুলনায় প্রায় ৬ গুণ পাতলা। ফলে কুকুরের গায়ে রং ছেটালে তার মধ্যে থাকা বিষাক্ত রাসায়নিক সহজেই কোষের মধ্যে ঢুকে ক্ষতের সৃষ্টি করে, ক্যান্সারও হতে পারে। এই ক্ষত সংক্রামক আক্রান্ত কুকুর থেকে সুস্থ কুকুরের শরীরেও সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থাকে। বিষাক্ত রাসায়নিক চোখে গেলে কুকুরের অন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও প্রবল। এ নিয়ে সচেতনতার প্রচার চলা সত্ত্বেও অবলা প্রাণীদের পিচকিরির ‘টার্গেট’ করা বন্ধ হয়নি। বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেট সূত্রে খবর, এবার দোল ও হোলিতে অবলা প্রাণীদের গায়ে রং ছেটালে ‘প্রিভেনশন অফ ক্রুয়েলটি টু অ্যানিম্যালস’ আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অভিযুক্ত যদি প্রথমবার এ ধরনের অপরাধ করেন, তাহলে জরিমানা, অন্যথায় ৬ মাস জেল হতে পারে অভিযুক্তের। এ ছাড়া দোল ও হোলিতে অশান্তি ঠেকাতে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা রেখেছে বিধাননগর কমিশনারেট। সামনে লোকসভা নির্বাচন।

দোল থেকে রাজনীতির উত্তাপ যাতে না ছড়ায়, সজাগ কমিশনারেটের কর্তারা। কমিশনারেট এলাকার বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ মোতায়েন থাকবে, টহল দেবে বিশেষ বাহিনী। দক্ষিণদাঁড়ি, পাথরঘাটা, গৌরাঙ্গনগর-সহ কয়েকটি এলাকার বাড়তি নজরদারির ব্যবস্থা থাকছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *